Home / জীবনযাপন / ঘরে_আগুন_লাগলে_কেউ_পানি_মারে_আবার_কেউ_আলু_পোড়ায়

ঘরে_আগুন_লাগলে_কেউ_পানি_মারে_আবার_কেউ_আলু_পোড়ায়

আগুন আতংকে সারা দেশ; রাজধানী সহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তে একের পর ঘটে যাচ্ছে ভয়াবহ অগ্নিকান্ড। যখন লেখাটি লিখছি তখনি খবর পেলাম এইমাত্র নরসিংদী জুট মিলে আগুন লেগেছে। কেন একের পর এক অফিস, আবাসিন ভবন, হাসপাতাল, মিল- কলকারখানা জ্বলছে ? ঘটনার ধারাবাহিকতায় স্বাভাবিক ভাবে প্রশ্নের জন্ম দিচ্ছে। বিগত কয়েক দশকে বাংলাদেশ কেন, আমাদের থেকেও অনেক অনুন্নত দেশে এমন ঘটনা ঘটতে দেখিনি। ধারাবাহিক অগ্নিকাণ্ডের এই ঘটনাই অস্বাভাবিকতার জন্ম দিচ্ছে, জনমনে প্রশ্নের সঞ্চার করছে।

১৯৭২ হতে ১৯৭৫ সাল পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন পাট গুদাম,খাদ্য গুদাম এবং মিল-কলকারখানাতে আগুন দেওয়া হয়েছিলো তৎকালীন সরকার এবং রাষ্ট্র ব্যবস্থাকে ব্যার্থ প্রমান এবং ধ্বংস করার জন্য। বর্তমান সময়ে হঠাৎ করেই যে ধারাবাহিক অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা শরু হয়েছে এখন সেটাকে স্বাভাবিক ভাবে দেখতে পারছি না। গত দেড় মাসে প্রায় ১৬ টি বড় ধরণের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে যেটা শুরু হয় ১৫ ই ফেব্রুয়ারী ২০১৯ তারিখ থেকে। পরপর ঘটে অনেক ঘটনা। পুড়ে ছাই করেছে মানুষের তিলে তিলে গড়া স্বপ্নগুলোকে এবং স্বপ্ন দেখা, স্বপ্নবুনা মানুষগুলোকে। তাই আর নিতে পারছিনা জ্বলে পুড়ে ছাই হওয়া এই আগুন উপ্যাখ্যান।

# ১৫ ই ফেব্রুয়ারী সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ভয়াবহ অগ্নিকান্ড দিয়ে শুরু এরপরে ঘটে যায় একের পর এক।

# ১৭ ই ফেব্রুয়ারী চট্টগ্রামের চাক্তাই ভেড়া মার্কেটের বস্তিতে আগুন লাগে। পুড়ে যায় সম্পূর্ণ বস্তি এবং মারা যায় ৯ জন।

# ২১ শে ফেব্রুয়ারি পুরান ঢাকার চকবাজারের ওয়াহিদ ম্যানসনের এক দোকানের ক্যামিক্যালের গুদাম থেকে আগুন, যাতে প্রায় ৭০ জন।

#২২ শে ফেব্রুয়ারি একই দিনে (কুমিল্লা,রাজশাহী, সিলেট,চট্টগ্রাম ও পুরান ঢাকায়) দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ৫ জায়গায় আগুন।
# ২০ শে মার্চ অ্যারোমা টি কোম্পানির গুদাম ও সিঙ্গার বাংলাদেশের ওয়্যারহাউসে অগুন।

#২২ শে মার্চ ঢাকার নিউমার্কেট এলাকায় বিশ্বাস বিল্ডার্স বিল্ডিংয়ে আগুন।

#২৩ শে মার্চ পুরান ঢাকার লালবাগে কাগজের কারখানায় আগুন।

#২৩ শে মার্চ ওইদিনই রামপুরায় বিটিভি ভবনের এলাকায় আগুন।

#২৮ মার্চ বনানী এফআর টাওয়ারে আগুন। একজন বিদেশীসহ অগ্নি দগ্ধ এবং প্রচন্ড ধোঁয়ায় শ্বাসরুদ্ধ হয়ে মারা যায় ২৫ জন মানুষ। আহত হয় ৫০ জনের উপরে। পুড়ে যায় ভবনের ৮ম থেকে ১২ তম তলা।
# ২৯ মার্চ রূপগঞ্জের এক টেক্সটাইল মিলে আগুন।

#৩০ মার্চ আগুন লাগে গুলশানের ডিএনসিসি কাঁচাবাজারে। রাতে ধানমন্ডি ১১ ও মগবাজার আবাসিক ভবনে আগুন লাগে।

# আজ ৩১ মার্চ আবার নরসিংদী জুট মিলে আগুন।

গত দেড় মাসে এই যে ধারাবাহিক অগ্নিকাণ্ড সেটা এখন আর নিশ্চয় সোজা চোখে দেখার কোনো উপায় নেই। সরকার, প্রসাশনকে এই মুহূর্তে সর্বোচ্চ সতর্কতার সাথে বিষয়টি খতিয়ে দেখা উচিত। স্বাভাবিক চোখে না দেখে গভীর পর্যবেক্ষণ করা উচিত নেহাত পেছনে অন্য কোন উদ্দেশ্য আছে কি। একটা পুকুরের উপর দিয়ে ভাসলে শুধুমাত্র তার দৈর্ঘ্য, প্রস্থ সম্পর্কে ধারণা জন্মাবে কিন্তু গভীরতা জানার জন্য গভীর থেকে গভীরে গিয়ে কাঁদা ছুঁয়ে আসতে হবে। ধারাবাহিক এই ঘটনাগুলো গভীর ভাবে খতিয়ে দেখতে হবে যে শুধুমাত্র অসতর্কতার কারণেই অগ্নিকাণ্ড ঘটছে কি না। একই সাথে সকল সরকারি, বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, মিল-কলকারখানায় সতর্কতা জারি করা উচিত। সতর্ক করা উচিত দেশের সব প্রান্তের মানুষকে যাতে তারা এমন ঘটনা ঘটলে সতর্কতার সাথে ক্ষয় ক্ষতি কমিয়ে বিষয়টি সামলাতে পারে। কারণ আধুনিক সভ্যতার ছোঁয়ায় মানুষ এখন দিন দিন যান্ত্রিক হয়ে যাচ্ছে। মানুষের প্রতি মানুষের স্নেহ,ভালোবাসা, মমতাবোধ লোপ পাচ্ছে। কোন একটা বিপর্যয় ঘটলে সেটাকে নিবৃত্ত করার চেয়ে মানুষ যেন সেটাকে প্রচার,প্রসার ও উদ্ধার কাজে বাঁধা সৃষ্টিতে উদগ্রীব।

“ঘরে আগুন লাগলে কেউ পানি মারে আবার কেউ আলু পোড়ায়”।বর্তমান সমাজ ব্যবস্থা ঐ পানি মারার লোক খুবই কম কিন্তু আলু পোড়ানো লোকের অভাব নাই। যেটা দেখেছি বনানীর অগ্নিকান্ডে ; অধিকাংশ মানুষ ছিলো ছবি তুলতে, ভিডিও করতে ব্যাস্ত। যেটা উদ্ধার কাজে ব্যাপক ভাবে বাধাগ্রস্ত করেছে। আবার গুলশান কেসিসি মার্কেট যখন আগুনে পুড়ে ছাই, আগুনের সাথে সাথে বহু নিন্ম-মধ্যেবিত্ত পরিবারের তিলে তিলে গড়া স্বপ্ন ভস্মীভূত। ঠিক তখনি একদল স্বার্থ পর মানুষ ব্যাস্থ ছিলো আগুনে পুড়ে ছাই হওয়া স্বপ্নের মধ্য হতে সিদ্ধ ডিম কুড়িয়ে ভক্ষণ করতে। জানিনা এই ধারাবাহিক অগ্নিকাণ্ডের পেছনে নেহাত কোন গোষ্ঠীর উদ্দেশ্য আছে কি না। যদি থেকে থাকে তবে এখোনো অনেক কিছু দেখার বাকি থাকবে। তাই এখনি উচিত সতর্কতা অবলম্বন করা। অগ্নিকাণ্ডের ভয়াবহতা থেকে রক্ষা পেতে আসুন আমরা সচেতন ও সতর্ক হই। আমাদের সচেতনতাই পারে পরবর্তী নতুন কোন দুর্ঘটনার হাত থেকে আমাদেরকে রক্ষা করতে।

হাফিজুল ইসলাম হাফিজ
বিএসএস(অনার্স), এমএসএস (রাষ্ট্রবিজ্ঞান),ঢাবি।

About বাংলার নিউজ ডেস্ক

Check Also

Essay About Speech Choir

After arriving in Philadelphia, Tateh sells the photograph reserve he developed for his daughter to …

When will i shut off get a hold of recorders

Productive connects your mobile phone with attributes and apps never in advance of obtainable on …

Hero Essay Assignment How To Write

INTRODUCTION As laptop or computer technology changes at rapidly rate, many businesses sectors also upgrade …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *