Home / খুলনা / চাঁপাইনবাবগঞ্জের তাজরীন ভুয়া কাবিননামা তৈরী করে স্ত্রীর মর্যাদা পেতে মরিয়া 

চাঁপাইনবাবগঞ্জের তাজরীন ভুয়া কাবিননামা তৈরী করে স্ত্রীর মর্যাদা পেতে মরিয়া 

গোদাগাড়ী প্রতিনিধি: চাঁপাইনবাবগঞ্জের দেবীনগর ইউনিয়নের ইবরাহীম মন্ডলেরটোলার মোয়াজ্জেমের মেয়ে তাজরীন (২৬) গোদাগাড়ী উপজেলার সল্লাপাড়া গ্রামের সাইফুল ইসলাম এর ছেলে নাজমুলের সাথে ভুয়া কাবিননামা নিয়ে স্ত্রীর মর্যাদা পেতে আদালতে মামলা। জেলা লিগ্যাল এইড অফিস চাঁপাই নবাবগঞ্জ ও চাঁপাইনবাগঞ্জ বিজ্ঞ আমলী আদালত-ক অঞ্চল সূত্রে জানা যায় গোদাগাড়ী উপজেলার সল্লাপাড়া গ্রামের সাইফুল ইসলাম এর ছেলে নাজমুলের সাথে ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরের ১৬ তারিখে গাজীপুর জেলার শ্রীপুর পৌরসভায় ৩ লক্ষ টাকা দেনমোহরে বিবাহ করে এবং সে তাকে স্ত্রী হিসেব গ্রহণ না করায় যৌতুকের মামলা করে যাহার মামলা নং ২৮৮সি/১৮ (নবাব)। এদিকে নাজমুল তার বিরুদ্ধে কথিত বিবাহের মামলা হয়েছে মর্মে জানতে পেরে নাজমুলও মোয়াজ্জেমের মেয়ে তাজরীনসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালত-৩, রাজশাহীতে মামলা দায়ের করেন। যাহার মামলা নং ২৭/২০১৮ (গোদাগাড়ী) তারিখ ২৮/১/১৮ বিজ্ঞ আমলী আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে বাদির আনিত অভিযোগের বিষয়ে সত্যতা নিরুপনের জন্য তদন্তপূর্বক প্রাথমিক সত্যতা যাঁচাই করে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করার জন্য অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) রাজশাহী জেলাকে তদন্তের ভার দেয়। পরবর্তীতে এস.আই রুহুল আমিন (নিঃ) পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) রাজশাহী মামলাটি প্রকাশ্য এবং গোপনে তদন্ত করে জানতে পারে পূর্বে তাজরীনের আরো ২বার বিয়ে হয়েছে এবং তাজরীন বেশ কিছু ছেলেদের প্রেমের প্রলোভন দেখিয়ে প্রতারণামূলকভাবে এ কাজ করে আসছে মর্মে সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যানসহ এলাকাবাসী জানায় তদন্তকারী কর্মকর্তাকে। অনুসন্ধানে আরো জানতে পারে যে নাজমুল হক একজন ছাত্র বর্তমানে স্নাতক ২য় বর্ষে গোদাগাড়ী সরকারি কলেজে নিয়মিতভাবে লেখা পড়া করছে। অপর দিকে বিবাদী তাজরীন খাতুন একজন বিবাহিতা নারী গত ৬/১২/১৩ ইং তারিখে জনৈক মোঃ খাইরুল ইসলাম পিতাঃ জারজিস আলী সাং কৃষ্ণগোপালপুর, মহাদেবপুর, নওগাঁর সহিত বিবাহ রেজিষ্ট্রি কাবিনমূলে বিবাহ হয়। উক্ত বছরের বিবাদী তাজরীনের গর্ভে এক কন্যা সন্তানের জন্ম হয়, নাম মাহমুদা বর্তমান বয়স ৫ বছর। বিবাদী তাজরীনের সহিত উক্ত খাইরুলের বিবাহ বেশিদিন স্থায়িত্ব না হলেই উক্ত বিবাহের বিচ্ছেদ ঘটে। তাজরীন তাহার প্রথম স্বামী খাইরুলের নিকট থেকে ৭০ হাজার টাকা নিয়ে বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটায় বলে জানা যায়। তাজরীন বিবাহের ২ বছর অতিবাহিত হতে না হতেই গত ইং ২১/৯/২০১৫ তারিখে জনৈক ফারুক হোসেন, পিতাঃ মৃতঃ আরমান আলী, মাটিকাটা, গোদাগাড়ী, রাজশাহীর সহিত বিবাহ হয়, উক্ত বিবাহের ২ মাসের মাথায় বিাবদী তাজরীন তাহার ২য় স্বামীর নিকট কর্তৃক আবারো ৬০ হাজার টাকার মাধ্যমে বিবাহ বিচ্ছেদের ঘটনা ঘটায়। অনুসন্ধানে তদন্তকারী কর্মকর্তা অধিকতর তদন্তকালে জানতে পারে যে বিবাদী তাজরীনের স্বভাব চরিত্র স্বাভাবিক নয়। চাঁপাই নবাবগঞ্জ সদর এলাকার চর আলাতুলী ইউনিয়নের চেয়্যারম্যান জনাব মো. জয়নাল আবেদীন, ইউপি সদস্য বাবলুসহ ৫৩ জন ব্যক্তির স্বাক্ষরিত একটি গণপিটিশন পর্যালোচনা দেখতে পায়। বিবাদী তাজরীন প্রেম ভালোবাসার অভিনয় করে মানুষের সাথে প্রতারণামূলক ভুয়া কাবিননামা সৃষ্টি করে লোকজনকে বিয়ের ফাঁদে ফেলে। তাদের কাছ থেকে অর্থ কড়ি হাতিয়ে নেয়। আলোচ্য মামলার বাদি ও বিবাদী তাজরীন উক্ত রুপ কার্যকলাপে শীকার হয়েছে বলে অনুসন্ধানে প্রকাশ পায়। অত্র অভিযোগ অনুসন্ধানকালে আরজির সহিত সংযুক্ত ০১ নং বিবাদী তাজরীনের সহিত বাদী নাজমুল হক এর ইং ১৬/৯/২০১৭ তারিখে ৩ লক্ষ টাকা দেনমোহর ধার্যের বিবাহের যে কাবিননামা পাওয়া যায় উহা পর্যালোচনায় দেখা যায় যে, ১ নং বিবাদী তাজরীন খাতুন তাহার পূর্বের ২টি বিবাহ গোপন করে বাদীর সহিত এটি তাহার প্রথম বিবাহ বলে উল্লেখ করে। তাজরীন গত ৬/১২/২০১৩ তারিখে প্রথম বিবাহের কাবিন নামায় বয়স ১৮ বছর, ২য় বিবাহের কাবিন নামায় তাজরীনের বয়স ২৩ বছর (জন্ম তারিখ ৮/১০/১৯৯৬ইং) এবং অভিযোগকরী নাজমুলের সহিত বিবাহের কাবিন নামায় জন্ম তারিখ ১৮/১২/১৯৯২ উল্লেখ করেন যাহাতে তাজরীনের বয়স ২৮ বছর উল্লেখ করা হয় যা অসমঞ্জন্য বলে প্রতিয়মান হয়। তদন্তকালে আরো জানতে পারে বাদী কাজী অফিসে না যাওয়া সত্ত্বেও অন্য লোক দিয়ে বাদীর নাম ও ঠিকানা ব্যবহার করে এ কাবিননামা সৃষ্টি করেছে। অভিযোগকারীর সহিত ১নং বিবাদী তাজরীনের বিবাহের কাবিন নামায় বরের উকিল নিয়োগের ব্যাপারে স্বাক্ষ্য হিসেবে অভিযোগকারীর পিতা সাইফুল ইসলামকে স্বাক্ষী করে তাহার স্বাক্ষী নেয়া হয়েছে বলেও উল্লেখ করা হলেও বাস্তবে উহা মিথ্যা বলে জানা গেছে। অভিযোগকারীর পিতা মো. সাইফুল ইসলাম প্রায় ১০ বছর যাবত সৌদি আরবে বসবাস করছে বলে জানা যায়। কাজেই প্রবাসে থাকা ব্যক্তিকে কাবিন নামায় স্বাক্ষী বানানো জাল জালিয়াতি ছাড়া আর কিছুই নয়। এছাড়াও উক্ত কাবিন নামায় সনাক্তকারী ও বর পক্ষের স্বাক্ষীদেরও খুুঁজে পাওয়া যায় নাই। উক্ত কাবিন নামায় থাকা অভিযোগকারির স্বাক্ষরটি প্রতারনামূলকভাবে সৃজন করা হয়েছে মর্মে প্রকাশ পায়। সেই আলোকে তদন্তকারী কর্মকর্তা তার বিধিমোতাবেক গত ২/৮/১৮ তারিখে বিজ্ঞ আমলী আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। তদন্ত প্রতিবেদনটি বিজ্ঞ আমলী আদালত আমলে নিয়ে ৫জনের বিরুদ্ধে ৬/২/১৯ তারিখে সমন জারি করে।

নাজমুলের দায়ের করা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন তাজরীনের বিপক্ষে দাখিল হয়েছে মর্মে জানতে পেরে তাজরীন নিজেকে মামলার হাত থেকে বাঁচার স্বার্থে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সার্কেল) গোদাগাড়ী, রাজশাহী বরাবর একটি অভিযোগ দায়ের করে। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সার্কেল) এর সাথে যোগাযোগ করা হলে প্রতিবেদককে তিনি জানান বিষয়টি অধিকত্বর তদন্ত চলছে।

বর্তমানে তাজরীন বিভিন্নভাবে নাজমুলকে টাকার জন্য সন্ত্রাসী দিয়ে হয়রানী করছে এবং নাজমুলের প্রতিবেদন পাওয়া মামলাটি যদি না তুলে নেয় তাহলে ধর্ষণ মামলায় ফাঁসিয়ে দিবে বলে হুমকি প্রদান করছে। এছাড়াও পুলিশ ও তার আস্থাভাজনদের মাধ্যমে টাকার বিনিময়ে আপোষ মিমাংসা করার জন্য প্রস্তাবও দিচ্ছে কিন্তু নাজমুল এর নিকট থেকে জানা যায় সে বলছে যেহেতু বিষয়টি বিচারাধিন সেহেতু বিষয়টি আদালতের মাধ্যমেই ফয়সালা করতে চাই।

এলাকাবাসীরা জানায় ওই মহিলা একজন দুশচরিত্রা ও অসামাজিক মেয়ে সে এর আগেও ২ জন ছেলেকে কথিত বিয়ের নামে ফাঁসিয়ে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। যা অত্র অঞ্চলের সকলেই জানে।

এই মেয়ে যাতে আর কোন ছেলের ক্ষতি করতে না পারে সে জন্য উর্ধতন মহলের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ওই এলাকার জনসাধারণ।

About বাংলার নিউজ ৭১

Check Also

আলাউদ্দিন আল মামুন সজীব ওয়াজেদ জয় পরিষদ পাবনা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মনোনীত

আলাউদ্দিন আল মামুন সজীব ওয়াজেদ জয় পরিষদ পাবনা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মনোনীত হওয়ায় পাবনা …

ডুমুরিয়ার গর্ব ড. বিশ্বজিৎ চন্দ ইউজিসির সদস্য মনোনীত হয়েছেন,উপজেলা চেয়ারম্যান এজাজ আহমেদের অভিনন্দন

আক্তারুল আলম সুমন ; খুলনা ব্যুরো প্রধান : ডুমুরিয়ার কৃতি সন্তান,সাবেক মন্ত্রী জনাব নারায়ন চন্দ্র …

“পাটাভোগ ইউনিয়ন ফাউন্ডেশন” – বন্যা কবলিত গ্রাম বাসিদের এান বিতরন।

“পাটাভোগ ইউনিয়ন ফাউন্ডেশন” – আয়োজিত বন্যা কবলিত গ্রাম বাসিদের মাঝে এান সামগ্রী বিতরন কার্যক্রমে আজ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *