Home / প্রচ্ছদ / পাইকগাছায় ব্রাম্মনের মেয়ে অপহরণ অতপরঃ বাল্য বিবাহ দেখার কেউ নেই!

পাইকগাছায় ব্রাম্মনের মেয়ে অপহরণ অতপরঃ বাল্য বিবাহ দেখার কেউ নেই!

পাইকগাছা প্রতিনিধিঃ এন.কে রায়ঃ পাইকগাছা পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডে সরল গ্রামের খগেন্দ্র নাথ মূখার্জির মেয়ে জবা মূখার্জি গত ১৬/০২/২০২০ ইং তারিখ রাত্র আনুমানিক ৯:০০ ঘটিকার সময় তার মাসির বাড়ী কয়রা থেকে অপহরণ হয়েছে। তার পরিবার সূত্রে জানা যায় জবা মূখার্জি উপজেলার মঠবাটি গ্রামে জনৈক যতীন (বাটুল) সরকারের ছেলে বিশ্বজিৎ সরকার এর সহিত প্রেমজ সম্পর্ক গড়ে ওঠে। জবা মূখার্জি পাইকগাছা সরকারি কলেজের ২০২০ শিক্ষাবর্ষের এইচ,এস,সি পরীক্ষার্থী। সম্পর্কের বিষয়টি যানাযানি হলে উভয়পক্ষ একত্রিত হয়ে সিদ্ধান্ত নেয়, যেহেতু ব্রাম্মনের সহিত অন্য স্ব-জাতির ছেলে  বিয়ে কখনওই সম্ভব নয় তাই সম্পর্ক এখানেই সমাপ্ত করা হোক। তাছাড়া জবার বয়স জন্ম নিবন্ধন অনুযায়ী ১৭ বছরও পুর্ণ হয়নি। সে একজন নাবালিকা মেয়ে।

উভয় পক্ষের সিদ্ধান্তের ৬মাস পার হতে না হতেই ছেলেটির পরিবার থেকে  মঠবাটি নিবাসি জনৈক বাবলু চক্রবর্তী নামে এক ব্যক্তি ০৫/০২/২০২০ ইং তারিখ জবাদের বাসায় উপস্থিত হয়ে জবাকে কি সব কথা বলে এবং মাথায় তেল এবং সিদুরের ছোপ লাগাতে দেখা যায়। সন্ধ্যা হতে না হতেই জবা তো উন্মাদ ছেলের বাড়ি যাবে এবং তার সহিত বসবাস করবে। আর কি সব আবোল তাবোল বলতে শুরু করে ঐ ছেলে সাথে তার বিয়ে হয়ে  গিয়াছে  তার সাথে সব কিছু হয়ে গেছে তার বাড়ি যাবে বলে কান্নাকাটি শুরু করে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রাখার জন্য জবাকে তার মাসির বাড়ি কয়রায় পাঠানো হয়। সেখানেও জবা নিরাপদে থাকতে পারেনি, কয়েকদিন পর ছেলেটির বোন তিন লোক নিয়ে কয়রায় জবার মাসির বাড়ি উপস্থিত হয়।  সেখানে জবার সাথে কথা বলে এবং পূর্বের কায়দায় কবিরাজের গুনগান করা তেল সিদুর মাথায় ছিটিয়ে দেয়। সন্ধ্যা হতে না হতে জবা আবারও উন্মাদ ছেলের বাড়ি যাবে, না যেতে দিলে সে আত্মহত্যা করবে।

সঙ্গে সঙ্গে এসব ঘটনা জবার বাবা মাকে জানানো হলে তারা সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কাউন্সিলর জনাব এস.এম তৈয়েবুর রহমান সহ আরও কয়েকজন প্রতিনিধিদের অবহিত করেন। প্রতিনিধিগন পরেরদিন সকাল ১১:০০টায় সরল ৪নং ওয়ার্ডে মেয়েদের  ভাড়াবাড়ীতে উভয়পক্ষকে একত্রিত করে মিমাংশার প্রস্তাব দেয়। সেখানে উপস্থিত ছেলে পক্ষের ছেলের বড় বোন সহ আরও কয়েকজন উপস্থিত ছিলেন। মিমাংশার এক পর্যায়ে ছেলের বড় বোন তার  ভাইয়ের সব দোষ স্বীকার করে জোড়হাতে মাফ চেয়ে নেয় এবং  কবিরাজের গুনগান করা তেল, সিদুর পড়া সহ সমস্ত গুনগান করা সামগ্রী মেয়ে পক্ষের নিকট হস্তান্তর করেন। যাহা সাদা কাগজে লিখিত একটা জবান বন্দিও রয়েছে।

তারা গুনগান করা সামগ্রী হস্তান্তর করে ক্ষ্যান্ত হয়নি, তারা আবার পূর্বের কায়দায় অন্য কবিরাজের নিকট থেকে গুনগান করা তেল, সিদুর সংগ্রহ শুরু করে। সে খবর জবার বাবা, মা দুজই জানতে পারেন। তারা তাদের মেয়ের নিরাপত্তা নিয়ে বড়ই চিন্তিত হয়ে পড়েন। তারা ভাবছিলো মেয়েকে আরও ভাল নিরাপত্তার জন্য অন্য জায়গায় পাঠাবে।

তাদের মেয়েকে নিরাপত্তার জন্য আর অন্য জায়গায় পাঠানো হলোনা। হঠাৎ ১৬/০২/২০২০ ইং তারিখ রাত্র ০৯ ঘটিকার সময় খবর এল জবাকে কোথাও খুজে পাওয়া যাচ্ছেন। সাথে সাথে জবার বাবা মঠবাড়ি ছেলে বাড়ি খোজ নিয়ে জানতে পারে ছেলেও উধাও।

পরেরদিন সকালে জবার বড়ভাই কয়রা থানায় লিখিতভাবে  একটি অভিযোগ দাখিল করেন, তার নাবালিকা বোন অপহরণ হয়েছে মর্মে। অপহরণের ১২  দিন পার হলেও কয়রার প্রসাশন কোন হদিস করতে পারিনি জবা এবং বিশ্বজিতের। পরক্ষনে কয়রা থানা থেকে লিখিত অভিযোগ পাইকগাছা থানায় স্থানান্তরিত করা হয়।

তাই নিরুপায় হয়ে জবার বাবা খগেন্দ্র মূখার্জী বাদী হয়ে ১নং আসামী বিশ্বজিৎ সরকার, ২নং আসামী যতিন্দ্র (বাটুল) সরকার সহ আরও ৪-৫ জনের নাম উল্লেখ করে পাইকগাছা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পুলিশ তদন্তের স্বার্থে ফোর্স নিয়ে বিশ্বজিতের বাড়ী পৌছালে তাদের কাউকে আটক করতে পারিনি। তারা আগেই পুলিশের আগমনের খবর পেয়ে সবাই বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায়।

এদিকে বিশ্বজিৎ  জবা  ও তার  বিবাহ বন্ধনের ছবি তৈরী করে ফেজবুকে আপলোড করে, এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেজবুকে এই ছবি ছড়িয়ে পড়ে।

জবার  এই ছবি জবার বাবা, মা দেখে তারা মানষিকভাবে একে বারেই ভেঙে পড়েছে। জবার বাবা, মায়ের ধারনা বিষয়টি ধামা চাপা দিয়ে চালিয়ে নেওয়ার জন্য ছেলে বাবা জবা এবং বিশ্বজিৎ দুজনকেই আত্মগোপন করে রেখেছে। তারা বিভিন্ন জনের দারে দারে মেয়েকে ভিক্ষা চাইছে আর বলছে আমার মেয়েকে ফিরিয়ে দেন। আগে মেয়ে ছিল উন্মাদ, এখন সেই মেয়ের জন্য তার বাবা, মা উন্মাদ। বিষয়টিতে তারা এখন সচেতন মহলের হস্তক্ষেপ ও সুদৃষ্টি কামনা করছে।

About বিশেষ প্রতিনিধি

Check Also

মান্দায় বন্যা কবলিত অঞ্চল পরিদর্শন করলেন বিএনপির নেতা মকলেছুর রহমান

শাহাদৎ রাজীন সাগর, স্টাফ রিপোটারঃ নওগাঁর মান্দায় ভারি বর্ষণ ও উজান থেকে ধেয়ে আসা পানির …

কুষ্টিয়া শহরের প্রসিদ্ধ মিষ্টান্ন ও খাবার প্রতিষ্ঠান আলোকিত মৌবন।

একটি মানুষ। সাফিনা আনজুম জনী Safina Anzum Jony। কিন্ত তিনি অনেকের কাছে আলোকবর্তিকা হিসেবেই উপাখ্যান। …

আজ পাইকগাছা পৌরসভার মাধ্যমে নবলোক এর হাইজিন কিট বিতরণ

পাইকগাছা প্রতিনিধিঃ এন.কে রায়ঃ আজ পাইকগাছা পৌরসভার ২টি (৩,৪)ওয়ার্ডের সংশ্লিষ্ট কাউন্সিলর দ্বয় নিজ নিজ ওয়ার্ডের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *